Home / Education / সরকারি নির্দেশনার পর বন্ধ কোচিং সেন্টার…

সরকারি নির্দেশনার পর বন্ধ কোচিং সেন্টার…

মাধ্যমিক স্কুল সার্টিফিকেট (এসএসসি) ও সমমানের পরীক্ষায় প্রশ্নপত্র ফাঁস রোধে গত শুক্রবার থেকে পরীক্ষা শেষ না হওয়া পর্যন্ত কোচিং সেন্টারগুলো বন্ধের সিদ্ধান্তের পর বিভিন্ন এলাকায় সেগুলোতে বন্ধের নোটিশ ঝুলছে। গতকাল রোববার রাজধানীর ‘কোচিংয়ের হাট’ হিসেবে পরিচিত ফার্মগেট-সংলগ্ন গ্রিন রোড ও শান্তিনগর এলাকায় গিয়ে সব কোচিং সেন্টার বন্ধ দেখা গেছে।

শিক্ষা মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, এ সিদ্ধান্ত বাস্তবায়নের জন্য ইতিমধ্যে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়কে অনুরোধ জানানো হয়েছে। একই সঙ্গে মুঠোফোনসহ অন্য যেকোনো ইলেকট্রনিক যন্ত্র নিয়ে যাতে কেউ পরীক্ষার কেন্দ্রে প্রবেশ করতে না পারে, তা নিশ্চিত করতেও বলা হয়েছে। স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর মাধ্যমে এ বিষয়ে ব্যবস্থা নেবে। কেউ এই নির্দেশ অমান্য করলে তারা কঠোর শাস্তির মুখে পড়তে হবে।

এসএসসি পরীক্ষা সুষ্ঠুভাবে অনুষ্ঠানের লক্ষ্যে গত বৃহস্পতিবার অনুষ্ঠিত পাবলিক পরীক্ষাসংক্রান্ত জাতীয় তদারক কমিটির সভায় পরীক্ষা শুরুর সাত দিন আগে থেকে পরীক্ষা শেষ না হওয়া পর্যন্ত কোচিং সেন্টারগুলো বন্ধ রাখাসহ বেশ কিছু সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। আগামী ১ ফেব্রুয়ারি শুরু হয়ে ২৪ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত চলবে এসএসসি পরীক্ষা।

গতকাল সকালে শান্তিনগর মোড় এলাকায় গিয়ে দেখা গেছে, উদ্ভাস কোচিং সেন্টার বন্ধ। দরজার সামনে বন্ধের নোটিশ ঝুলছে। তাতে লেখা রয়েছে, শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের নির্দেশনা মোতাবেক এসএসসি পরীক্ষা  উপলক্ষে ২৬ জানুয়ারি থেকে আগামী ২৪ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত উদ্ভাসের সব কার্যক্রম বন্ধ থাকবে। পাশে রেটিনা কোচিং সেন্টারের সামনেও বন্ধের নোটিশ ঝুলছে।

বিকেলে ‘কোচিংয়ের হাট’ হিসেবে পরিচিত ফার্মগেট-সংলগ্ন গ্রিন রোডে গিয়ে দেখা যায়, আগে যেখানে কোচিং করার জন্য শিক্ষার্থীদের পদচারণে এলাকাটি মুখর থাকত, সেখানে এখন উল্টো চিত্র। ওই এলাকার সবচেয়ে বড় কোচিং সেন্টার ইউসিসি। সেখানে গিয়ে দেখা গেল, শাটার লাগানো। শাটারের সামনে কোচিং বন্ধের নোটিশ। এই নোটিশে অন্যান্য শাখার কার্যক্রম বন্ধেরও অনুরোধ করা হয়েছে। আশপাশের আইকন, অ্যাডমিশন এইড, ম্যাবস, ত্রি ডক্টরসসহ আরও কয়েকটি কোচিং সেন্টার বন্ধ পাওয়া যায়।

শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের একাধিক কর্মকর্তা বলেন, এবার প্রশ্নপত্র ফাঁসকে তাঁরা চ্যালেঞ্জ হিসেবে নিয়েছেন। যেকোনো উপায়ে তাঁরা এবার প্রশ্নপত্র ফাঁস বন্ধ করতে চান। এ জন্য যা যা করার তা-ই করা হচ্ছে। গত বৃহস্পতিবার অনুষ্ঠিত তদারক কমিটির সভাতেও শিক্ষামন্ত্রী বলেছিলেন, প্রশ্নফাঁস রোধে তাঁরা বেপরোয়া ও আক্রমণাত্মক।

 

Check Also

“ব্লু-মুন” দেখার টান টান অপেক্ষা! চন্দ্রগ্রহণ শুরু হবে বাংলাদেশ সময় বিকাল…

বিশ্ববাসী প্রত্যক্ষ করতে যাচ্ছে এক বিরল মহাজাগতিক দৃশ্য। এবার একই সঙ্গে দেখা যবে পূর্ণগ্রাস চন্দ্রগ্রহণ, …

Leave a Reply

Your email address will not be published.